আজ : ২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
Breaking News

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী :নাশকতা প্রতিরোধে ঈদগাঁহে বিশেষ নিরাপত্তা

নাশকতা প্রতিরোধে জাতীয় ঈদগাঁহ, বায়তুল মোকাররম ও অন্যান্য ঈদগাঁহে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।নাশকতা প্রতিরোধে ঈদগাঁহে বিশেষ নিরাপত্তা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সচিবালয়ে আজ বৃহস্পতিবার পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা ও আনুষঙ্গিক বিষয়ে সভা শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান মন্ত্রী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের গোয়েন্দারা সতর্ক থাকবেন। নাশকতা প্রতিরোধে জাতীয় ঈদগাঁহ, বায়তুল মোকাররম ও অন্যান্য ঈদগাঁহে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা আমার প্রদান করব।’

বিশেষ নিরাপত্তার মধ্যে কি কি থাকছে- একজন সাংবাদিক জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘যাতে সন্দেহভাজন ব্যক্তিরা না আসতে পারে, গোয়েন্দারা আমাদের যে ইনফরমেশন দিচ্ছে বা দিবে তার উপর ভিত্তি করে প্রত্যেকটি ঈদগাঁহেই আমরা প্রিকশান (পূর্ব সতর্কতা) নেব। যেমনটা আমরা শোলাকিয়ায় করেছিলাম।’

তিনি বলেন, ‘ঢাকা শহরের প্রতি মহল্লায় ঈদের জামাত হয়ে থাকে। সেখানে আমাদের ভলান্টিয়াররা থাকবেন। ভলান্টিয়ার ও আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী সবাই সজাগ থাকবেন। যেখানে আমাদের প্রয়োজন হবে সেখানে আর্চওয়ে ও অন্যান্য চেকিংয়ের ব্যবস্থা করব।’

এবার ঈদ সামনে রেখে কোনো নিরাপত্তা হুমকি আছে কিনা- একজন সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, ‘সিকিউরিটি থ্রেট আছে কি, না আছে সেটার জন্য আমরা সব সময়ই প্রস্তুত রয়েছি। থাকুক আর না থাকুক আমরা প্রস্তুত রয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘যানজট নিরসনে গার্মেন্টস শিল্পকারখানার শ্রমিকদের ১০ তারিখের মধ্যে বেতন-ভাতা পরিশোধ করে পর্যায়ক্রমে ছুটি প্রদানের কথা এখানে আলাপ হয়েছে। বিজিএমইএ, বিকেএমইএ ও অন্যান্য মালিকরা তা করবেন, আমরা সেটাই বিশ্বাস করি।’

ঢাকা মহানগরীতে ২৩টি পশুর হাট বসবে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘হাটগুলোতে ২৪ ঘণ্টা সুস্পষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা হবে। টাকা আনা-নেওয়ার জন্য আমাদের নিরাপত্তাবাহিনী সেখানে থাকবে। যে যেখানে চাইবে তাদের টাকা নিরাপদ স্থানে পৌঁছে দেওয়ার জন্য সিকিউরিটির ব্যবস্থা করা হবে।’

‘পশুবাহী ও পণ্যবাহী ট্রাক হাইওয়েতে যেন কোনো চাঁদাবাজির খপ্পরে না পড়ে সে বিষয়েও বিশেষ নজর রাখবে আমাদের নিরাপত্তাবাহিনী।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘নকল টাকা শনাক্ত করার জন্য হাটগুলোতে ব্যবস্থা রাখব। বিশেষ যন্ত্রের মাধ্যমে পরীক্ষা করে আমরা সহযোগিতা করব।’

প্রায় ৯০ শতাংশ শপিং মলে এখন সিসি ক্যামেরা রয়েছে জানিয়ে আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, ‘মালিকরাই এটা করেছেন। পুলিশের অনুরোধে এ ব্যবস্থা হয়েছে। সিসি টিভির সঙ্গে আমাদের নিরাপত্তাবাহিনীও সব সময় সজাগ থাকবে। সবাই যাতে নির্বিঘ্নে ঈদের কেনাকাটা করতে পারে সেজন্য ব্যবস্থা থাকবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘কোথায় কি করতে হবে আমরা তা আগেই তৈরি করে নিয়েছি। হেড কোয়ার্টারের পুলিশ কি করবে তার একটা ব্যবস্থা তারা করে নিয়েছিলেন। সমস্ত জায়গায় ছোট ছোট মিটিং হয়েছিল, আজকে আমরা ফাইনাল মিটিং করলাম।’

তিনি বলেন, ‘যারা বাড়ি ফিরবে তারা যাতে নিরাপদে যেতে পারে, আবার যখন আসবে তখন যাতে নিরাপদে আসতে পারে। কলকারখানা মালিকদের অনুরোধ করেছি তারা যেন সময় মতো বেতন ও বোনাসটা দিয়ে দেন।’

ঢাকা-টাঙ্গাইল হাইওয়েসহ যানজট প্রবণ মহাসড়কে যানজট প্রতিরোধে বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘মহাসড়কে ১৫টি ওয়াচ টাওয়ার থাকবে, কোথায় যানজট হচ্ছে যাতে তা আমরা দূর থেকে দেখতে পারি।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘মহাসড়কে ফায়ার সার্ভিসের মোট ৮৬টি মোবাইল রেসকিউ টিম (উদ্ধারকারী দল) থাকবে। কেউ যদি দুর্ঘটনা কবলিত হয় তাকে যেন সঙ্গে সঙ্গে নিকটবর্তী হাসপাতালে নিয়ে যেতে পারে। র‌্যাকারের সাহায্যে দুর্ঘটনায় পড়া গাড়ি সরিয়ে যানজট মুক্ত করতে পারি সেই ব্যবস্থাটা করা হবে।’

পাটুরিয়া, মাওয়া, গোয়ালন্দ, কাওড়াকান্দি ঘাটে ডুবুরিসহ ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা প্রস্তুত থাকবেন বলেও জানান মন্ত্রী।

এ সময় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মোজাম্মেল হক খান, পুলিশের মহাপরিদর্শক এ কে এম শহীদুল হক, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, এফবিসিসিআই, বিজিএমইএ, বিকেএমইএ ও ট্যানার্স এসোসিয়েশনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Comment moderation is enabled. Your comment may take some time to appear.