আজ : ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
Breaking News

রেহানা পার্টিতে ভাল করবেন’ ‘জয় সরকারে ভাল করবেন,

বাংলাদেশে শেখ হাসিনার পর শেখ মুজিবুর রহমানের পরিবারের কোন্ ব্যক্তি আওয়ামী লীগের হাল ধরতে পারেন, এমন আলোচনা কখনো কখনো রাজনৈতিক মহলে শোনা যায়।
যদিও আনুষ্ঠানিকভাবে কোন ঘোষণা কখনোই হয়নি, কিন্তু অনেকেই মনে করেন শেখ হাসিনার বড় ছেলে সজীব ওয়াজেদ, যিনি প্রধানমন্ত্রীর তথ্য প্রযুক্তি উপদেষ্টা হিসেবেও কাজ করেন, তিনি ভবিষ্যতে দলের হাল ধরতে পারেন।
আবার বরাবরই রাজনীতির বাইরে থাকা শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট মেয়ে শেখ রেহানার কথাও কারো কারো আলোচনায় আসে।
কিন্তু এ নিয়ে ওই পরিবারের কোন সদস্যের মনোভাব কখনো জানা যায়নি।

কিন্তু এবার শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট জামাতা এবং শেখ রেহানার স্বামী ড. শফিক আহমেদ সিদ্দিক, যিনি নিজে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন অধ্যাপক, তিনি বললেন, শেখ রেহানা যদিও রাজনীতিতে আসতে অনিচ্ছুক, কিন্তু প্রয়োজন ও সময় হলে তিনি রাজনীতিতে আসতে পারেন।
ড. সিদ্দিক মনে করেন সজীব ওয়াজেদ জয় রাজনীতিতে এলে ভালো করবেন। কিন্তু তিনি রাজনীতিতে আসবেন কিনা সেটি জয়ের সিদ্ধান্ত বলে মনে করেন মি. সিদ্দিক।
তবে রাজনৈতিক দলকে সরকারের কাছ থেকে আলাদা রাখার গুরুত্ব উল্লেখ করে ড. সিদ্দিক আরো বলেন, “জয় (সজীব ওয়াজেদ) সরকারে ভাল করবেন, রেহানা পার্টিতে ভাল করবেন।”
বেসরকারি টেলিভিশন বাংলাভিশনের এক টকশোতে হাজির হয়ে তিনি এসব কথা বলেন, যদিও এগুলোকে একান্তই ব্যক্তিগত দৃষ্টিভঙ্গি হিসেবে উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বাংলাভিশনের ‘নিউজ অ্যান্ড ভিউজ’ নামের সংবাদ পর্যালোচনা মূলক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন।
অনুষ্ঠানটি রবিবার মধ্যরাতের পর সরাসরি সম্প্রচারিত হয়।
অনুষ্ঠানের এ পর্বের আলোচনার বিষয় ছিল নির্বাচন কমিশন গঠন, কিন্তু উপস্থাপক হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ ড. সিদ্দিককে জিজ্ঞেস করেন, রাজনীতিতে বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ কন্যা (শেখ রেহানা) কিংবা এই পরিবারের অন্য কারো অন্তর্ভুক্তির বিষয়কে তিনি কীভাবে দেখছেন।
ড. সিদ্দিক জবাবে সজীব ওয়াজেদকে মডার্ন এবং ডিজিটাল যুগের ছেলে হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, “আমার মতে জয় খুব খারাপ করবে না পলিটিক্সে, স্পেশালি সরকার চালানোর ব্যাপারে।”
ড. সিদ্দিক বলেন, “বঙ্গবন্ধুর সাথে যারা রাজনীতি করেছেন তাদের নিয়ে সরাসরি রাজনীতিতে হাসিনা আপা প্রথম দিকে কিন্তু একটু ডিফিকাল্টি ফেস করছিলেন। তার পরে হাসিনা আপা নিজের টিম গঠন করেছেন।
.শেখ হাসিনা যেমন চাচাদের ছেড়ে নিজেদের লোক বেছে নিয়েছেন, জয়ের সময়েও দেখবেন মামাদের .কিছু সংখ্যক বিদায় করে দিয়ে নতুন লোকজন চিন্তা করতে হবে।”

এই পরিস্থিতিতে শেখ রেহানা একটি ভারসাম্যের কাজ করতে পারেন বলে আলোচনায় বলেন ড. শফিক আহমেদ সিদ্দিক।
“সবচেয়ে সুন্দর হবে জয় যদি সরকারে থাকে, রেহানা যদি পার্টিতে থাকে।”
“রেহানা বঙ্গবন্ধুর কন্যা হিসেবে রাজনীতি মোটামুটি ভাল বোঝে, পার্টি পলিটিক্স ভালো বোঝে। যদিও রেহানাকে আমি দেখেছি সবচেয়ে নন-পলিটিকাল লোক। কিন্তু পলিটিক্স সে ভাল বোঝে। আসতে চায় না। কিন্তু সময় হলে বাধ্য হবে আসতে। যদি সময় হয়।”
“যেমন হাসিনা আপার তো (শেখ হাসিনা) রাজনীতিতে অত ইন্টারেস্ট ছিল না। প্রথম দিকে ছাত্রাবস্থায় ছিল, কিন্তু পরে পুরো সংসার ধর্ম করেছেন। কিন্তু প্রয়োজনের খাতিরে হাসিনা আপা সুন্দর চালাচ্ছেন তো।”

সজীব ওয়াজেদ ও শেখ রেহানাকে একটি সুন্দর ‘কম্বিনেশন’ বলেও বর্ণনা করেন ড. সিদ্দিক।
“জয় সরকার চালাবেন, রেহানা পার্টি চালাবেন, আমার মনে হয় এই কম্বিনেশনটা ভাল হবে। যদি প্রয়োজন হয়।”
“রেহানা তো রাজনীতিতে আসতে চায় না। সে রিলাকটান্ট (অনিচ্ছুক) প্লেয়ার। ইতিহাসে দেখা গেছে রিলাকটান্ট প্লেয়াররাই ভাল করে।”
মি. সিদ্দিক বলেন, পলিটিক্সে কী হবে না হবে সেটা সময় বলে দেবে। তবে তিনি উল্লেখ করেন শেখ রেহানার ‘রাজনৈতিক ভিশন ভালো।’ তিনি রাজনীতিতে আসলে খারাপ করবেন না বলে মনে করেন ড. সিদ্দিক।

“আমার ব্যক্তিগত ধারণা হল জয় সরকারে ভাল করবে, রেহানা পার্টিতে ভাল করবে। আমি ফিল (অনুভব) করি সরকার সবসময় দল থেকে আলাদা থাকা উচিত”, বলেন শেখ রেহানার স্বামী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. শফিক আহমেদ সিদ্দিক।
তবে ড. সিদ্দিক স্মরণ করিয়ে দেন, যাতে তার বিশ্লেষণের উপর ভিত্তি করে সংবাদ মাধ্যমে আওয়ামী লীগের ভবিষ্যত নেতৃত্ব সম্পর্কে যাতে কোন অনুমান না করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Comment moderation is enabled. Your comment may take some time to appear.