আজ : ২৩শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং , ১০ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Breaking News

বিএনপির ১৩ নেতাকর্মী কারাগারে গৌরনদীতে পেট্রোল বোমা হামলার মামলায়

২০১৫ সালে বিএনপি-জামায়াতের সরকার বিরোধী আন্দোলন চলাকালীন বরিশালের গৌরনদীতে পেট্রোল বোমা হামলায় ৩ জন নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছিল। এ ঘটনায় স্থানীয় সাবেক চার ইউপি চেয়ারম্যানসহ বিএনপির ১৩ নেতাকর্মী জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন আদালত। আসামিরা নাশকতা মামলার চার্জশিট ভুক্ত।

জানা গেছে, বুধবার বরিশালের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গৌরনদীর সাবেক চার ইউপি চেয়ারম্যানসহ বিএনপির ১৩ জন নেতাকর্মী আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করেন। বিচারক তাদের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

অভিযুক্ত আসামিরা হলেন, উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও বার্থী ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মো. আবুল হোসেন মিয়া, উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও সরিকল ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মো. মনজুর হোসেন মিলন, উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও মাহিলাড়া ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার সাদাত তোতা, খাঞ্জাপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ও খাঞ্জাপুর ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আকন সিদ্দিকুর রহমান, গৌরনদী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের সহকারী অধ্যাপক ও মাহিলাড়া ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. লোকমান হোসেন, মাহিলাড়া ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. সাহিন সিকদার, মাহিলাড়া ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতি সজল সরকার, চাঁদশী ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি মো. সোবাহান সরদার, যুবদল নেতা সাহিন সরদার দেলোয়ার সরদার, কামরুল সরদার, রহিম হাওলাদার ও রুবেল গোমস্তা।

ওই মামলার বাকি ১৪ জন আসামি আদালতে হাজির হননি। ওই আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে বলে আদালত সূত্রে জানা গেছে।উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি বিএনপি ও জামায়াতের সরকার বিরোধী আন্দোলনে মাহিলাড়া নামকস্থানে মুরগীর খাবার বোঝাই একটি ট্রাকে পেট্রোল বোমা হামলা চালায় অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা। এতে ট্রাক চালক মোতালেব শেখ, হেলপার ইজাজুল ও ফরিদ বিশ্বাস আগুনে পুড়ে মারা যায় এবং ট্রাকটি ভস্মীভূত হয়।

এ ঘটনায় গৌরনদী মডেল থানার তৎকালীন এসআই মো. জুবায়ের হোসেন বাদী হয়ে বিএনপি ও জামায়াতের ৩২ জন নেতাকর্মীর নাম উল্লেখসহ আরো অজ্ঞাতনামা ২০ জনকে আসামি করে স্থানীয় থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। কয়েক দফা মামলাটির আইও পরিবর্তন শেষে ২০১৮ সালে মামলাটি সিআইডির কাছে হস্তান্তর করা হয়। গত বছরের ২৫ নভেম্বর বরিশালের সিআইডি পরিদর্শক খোন্দকার ফেরদৌস আহম্মেদ ২৭ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করেন। আসামিরা এতদিন পলাতক ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Comment moderation is enabled. Your comment may take some time to appear.