আজ : ১৩ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
Breaking News

বরিশালে পুলিশ সদস্যর স্ত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু

এম জামাল হোসেন : বরিশাল নগরীর গোরস্থান রোডে পাঁচ তলা ভবনের ছাদ থেকে পড়ে এক পুলিশ সদস্যর স্ত্রী রহস্যজনক ভাবে মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (৭ ডিসেম্বর) বেলা ১২টার দিকে স্বামীর সাথে মোবাইলে কথা বলা শেষে ছাদ থেকে পড়ে গুরুতর আহত হলে শেবাচিম হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। তবে গৃবধূর মৃত্যু হত্যা নাকি আত্মহত্যা হত্যা তা নিয়ে মানুষের মুখে কানা খুশখসি চলছে । নিহত গৃহবধূর নাম সানজিদা আক্তার (২২)। সে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মাসুম আহম্মেদ এর স্ত্রী। নিহত সানজিদা পিতার বাড়ী ঝালকাঠি’র নলছিটি উপজেলার ঝুমুরকাঠি গ্রামের আমজাদ হোসেন এর কণ্যা। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী নিহত গৃহবধূ সানজিদা’র ননদ রুমি আক্তার জানান, ঈদুল ফিতরের পর দিন তার ভাই পুলিশের এএসআই মাসুম এর সঙ্গে সানজিদার আনুষ্ঠানিক ভাবে বিয়ে হয়। মাসুম ইতিপূর্বে বরিশাল মেট্রোপলিটন কোতয়ালী মডেল থানায় কর্মরত থাকার সুবাধে বিয়ের পর থেকেই তারা বরিশালে বসবাস করে আসছিলো। কিন্তু সম্প্রতি তাকে পদন্নোতী দিয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে সংযুক্ত করা হয়েছে। বর্তমানে মাসুম ঢাকায় কর্মরত। গত চার মাস ধরে মাসুম এর স্ত্রী সানজিদা বেগম বরিশাল নগরীর সিন্ডবি সড়ক সংলগ্ন গোরস্থান রোডে কোরিয়া প্রবাসী নাসির মিয়ার মালিকানাধীন (হোল্ডিং নং-৯০৬) পাঁচতলা বাড়ির ২য় তলার একটি ফ্লাটে ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করে আসছিলো। গৃহবধূ সানজিদার সঙ্গে ননদ রুমি এবং এক দেবর বসবাস করত। রুমি জানান, বুধবার (৭ ডিসেম্বর) বেলা ১২টার দিকে তার ভাবি সানজিদা ছাদে উঠে মাসুম এর সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বলেন। কথা বলার হঠাৎ সময় সানজিদাকে উত্তেজিত হতে দেখেন রুমি। পরে রুমি তার ভাবি সানজিদাকে ডেকে আনতে বাড়ির ছাদে যান। সেখানে সানজিদাকে খুব বিমর্শ অবস্থায় দেখে রুমি তার হাত ধরে টেনে ঘরে নিয়ে আসার চেষ্টা করে। তখন সানজিদা উত্তেজিত হয়ে পাঁচ তলার ছাদ থেকে নিচে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। তাৎক্ষনিক ভাবে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধিন অবস্থায় বিকাল ৪টার দিকে সানজিদার মৃত্যু হয়। ঔ বাড়িতে ভাড়া থাকা কয়েকজন প্রতিবেশী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, পুলিশের এএসআই মাসুম পদোন্নতী পেয়ে ঢাকায় চলে যাবার পরে সেখানে পরকিয়ায় জড়িয়ে পরেন। বিষয়টি স্বামী-স্ত্রীর মাঝে জানাজানি হলে স্ত্রী সানজিদা মানসিক ভাবে ভেঙ্গে পড়ে। বিয়ের পর থেকেই সানজিদাকে বিভিন্ন ভাবে নির্যাতন করে আসছিলো স্বামী মাসুম ও তার পরিবার। ঘটনাস্থলে থাকা কোতয়ালী মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মমিনুল ইসলাম বলেন, ঘটনাটি রহস্যজনক মনে হচ্ছে। তবে মেয়ের পরিবার থেকে এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ করেনি। লিখিত অভিযোগ কিংবা মামলা করা হলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। তবে নিহতের ঘটনায় আপাতত একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Comment moderation is enabled. Your comment may take some time to appear.