আজ : ১৩ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
Breaking News

প্রধান নির্বাচন কমিশনার হচ্ছেন সাবেক সচিব নুরুল হুদা

বাংলাদেশে পরবর্তী প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে সাবেক সচিব কে এম নুরুল হুদার নাম অনুমোদন করেছেন রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ।
সোমবার রাতে সচিবালয়ে সংবাদিকদের ব্রিফিংকালে মন্ত্রীপরিষদ সচিব মো: শফিউল আলম জানান, সার্চ কমিটির পক্ষ থেকে দুজনের নাম প্রস্তাব করা হয়েছিল , একজন কে এম নুরুল হুদা এবং আরেকজন সাবেক মন্ত্রী পরিষদ সচিব আলী ইমাম মজুমদার। রাষ্ট্রপতি কে এম নুরুল হুদাকে বেছে নিলেন।
এছাড়াও নির্বাচন কমিশনার হিসেবে সার্চ কমিটি যে আটজনের নাম প্রস্তাব করেছিল সেখান থেকে রাষ্ট্রপতি চারজনের নাম অনুমোদন করেছেন নির্বাচন কমিশনার হিসেবে।
নির্বাচন কমিশনাররা হলেন- সাবেক অতিরিক্ত সচিব মাহবুব তালুকদার, অবসরপ্রাপ্ত জেলা ও দায়রা জজ বেগম কবিতা খানম, সাবেক সচিব মো: রফিকুল ইসলাম এবং ব্রিগেডিয়ার অবসরপ্রাপ্ত শাহাদাত হোসেন চৌধুরী।
মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, রাষ্ট্রপতির নিয়োগকৃত নির্বাচন কমিশনারদের মধ্যে মাহবুব তালুকদারের নাম বিএনপির তালিকায় ছিল এবং বেগম কবিতা খানমের নাম আওয়ামী লীগের তালিকায় ছিল।
এর বাইরেও সার্চ কমিটির পক্ষ থেকে যাদের নাম প্রস্তাব করা হয়েছিল তারা হচ্ছেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক জারিনা রহমনা খান, স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ ড: তোফায়েল আহমেদ, অধ্যাপক নাজমুল আহসান কলিমুল্লাহ এবং পরিকল্পনা কমিশনের সাবেক সদস্য আবদুল মান্নান।
নতুন নির্বাচন কমিশন সম্পর্কে ক্ষমতাশীল আওয়ামী লীগের একজন নেতা মাহবুবুল আলম হানিফ বলেছেন “এর প্রতি আমাদের পূর্ণ আস্থা রাখতে হবে”।
ওদিকে প্রধান বিরোধী রাজনৈতিক দল বিএনপি নতুন কমিশন গঠনের পর নিজেদের মধ্যে রাতেই আলাপ করেছে। আগামীকাল দলের শরীকদের সাথে আলাপের পর তাদের আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া দেবে বলে দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।
প্রধান নির্বাচন কমিশনার সাবেক সচিব কে এম নুরুল হুদার সংক্ষিপ্ত পরিচিতি
১৯৭৩ ব্যাচের সরকারি কর্মকর্তা ছিলেন কে এম নূরুল হুদা। তাঁর বাড়ি পটুয়াখালীতে।
ঢাকা সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী এবং পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় এবং সংসদ সচিবালয় যুগ্মসচিব ও অতিরিক্ত সচিবের দায়িত্ব পালন করার অভিজ্ঞতা রয়েছে তার।
কে এম নুরুল হুদা চাকরিজীবনে ফরিদপুর ও কুমিল্লার জেলা প্রশাসক ছাড়াও কিছু মন্ত্রণালয়ের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন।
কিন্তু সচিব হিসেবে কোনও মন্ত্রণালয় তিনি পরিচালনা করেননি – নাম ঘোষণার পর এমনটা জানিয়েছেন মন্ত্রীপরিষদ সচিব মো: শফিউল আলম ।
দীর্ঘদিন ওএসডি থাকার পর ২০০৬ সালে সচিব হিসেবে অবসরে যান নুরুল হুদা ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Comment moderation is enabled. Your comment may take some time to appear.