আজ : ২রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
Breaking News

পুলিশ শ্যামল কান্তি ও সেলিম ওসমান পরিস্থিতির শিকার:

ধর্মীয় ইস্যুতে উত্তেজিত জনতার দাবির পরিপ্রেক্ষিতে নারায়ণগঞ্জের বন্দরে পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে লাঞ্ছিত করার ঘটনাটি আকস্মিকভাবে ঘটেছে। শিক্ষক শ্যামল কান্তি ও স্থানীয় সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান দু’জনই উদ্ভূত পরিস্থিতির শিকার। এতে প্রতিষ্ঠান-সংশ্লিষ্ট কারও বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ নেই।

শিক্ষক শ্যামল কান্তিকে লাঞ্ছনার ঘটনায় রোববার হাইকোর্টে নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার ও বন্দর থানার ওসির (তদন্ত) দেওয়া তদন্ত প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়েছে।
রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহের হোসেন সাজু হাইকোর্টে এ প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন। পরে বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি আশীষ রঞ্জন দাস সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ বিষয়ে আদেশের জন্য ১০ আগস্ট দিন ধার্য করেন।

তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে কান ধরে ওঠবস করানোর ঘটনাটি আকস্মিকভাবে ঘটেছে। এ ঘটনায় শ্যামল কান্তি কাউকে দোষী করছেন না। এমনকি আদালত বা পুলিশের কাছেও কোনো অভিযোগ করবেন না বলে পুলিশকে জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে মোতাহের হোসেন সাজু সাংবাদিকদের বলেন, শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনায় করা সাধারণ ডায়েরির (জিডি) ভিত্তিতে নারায়ণগঞ্জের বিচারিক আদালতে পুলিশ গত বুধবার একটি প্রতিবেদন দাখিল করেছিল। ওই একই প্রতিবেদন রাষ্ট্রপক্ষের মাধ্যমে রোববার হাইকোর্টে উপস্থাপন করা হয়েছে।

গত ৮ মে নারায়ণগঞ্জের পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে শাসন করার সময় শিক্ষক শ্যামল কান্তি ধর্ম সম্পর্কে বিরূপ মন্তব্য করেন বলে অভিযোগ ওঠে। পরে ১৩ মে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভা চলার সময় মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে তার শাস্তির দাবিতে লোক জড়ো করা হয়। এর পর উত্তেজিত লোকজন তাকে মারধর করে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমান ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের উপস্থিতিতে প্রধান শিক্ষককে মারধর ও কান ধরে ওঠবস করানো হয়। গণমাধ্যমে এ নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ হলে ১৮ মে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এম কে রহমান ও মহসিন রশীদ বিষয়টি হাইকোর্টে উপস্থাপন করেন। এতে ওইদিনই হাইকোর্ট স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে রুল জারির পাশাপাশি এ ঘটনায় পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নারায়ণগঞ্জের ডিসি ও এসপিকে নির্দেশ দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Comment moderation is enabled. Your comment may take some time to appear.