আজ : ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Breaking News

সাংবাদিক নামধারী কেএই অরুন গভীর রাতে বিধবার ঘরে , বিয়ের প্রস্তাবে গন ধোলাই থেকে রক্ষা

সাবিনা ইয়াসমিন ঃ বরিশালের মেট্রোপলিটন এয়ারপোর্ট থানা এলাকার রহমতপুর সিংহের কাঠী গ্রামের এক বিধবা মহিলার সাথে আপত্তিকর অবস্থায় মধ্যরাতে জনতার হাতে আটক হন উপজেলা প্রেসক্লাবের পরিচয়দানকারী চাদাবাজ জহিরুল ইসলাম অরুন। পরিস্থিতি সামাল দিতে বিয়ের প্রস্তাবে শেষ রক্ষা পান । করেছেন আবার তৃতীয় বিয়ে।
। রোববার (১৪ জুন ) রাতে আটককৃত ওই সাংবাদিক পরিচয়দানকারী সম্পর্কে স্থানীয় এলাকাবাসী অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে বাবুগঞ্জ উপজেলার কলেজ গেট এলাকার নামধারী সাংবাদিক পরিচয়দানকারী টাউট বাটপার বিএনপির এজেন্ট দুই নম্বারী ঔষধ ব্যবসায়ী অরুন রহমতপুর সিংহেরকাঠি গ্রামের এক সাবেক প্রবাসীর বিধবা স্ত্রীরকে ফুসলিয়ে দীর্ঘদিন অবৈধ সর্ম্পক ও নারী ব্যাবসা চালিয়ে আসছিল। তবে এ অপকর্মের বিষয়ে স্থানীয়রা জেনেও প্রতিবাদ করার সাহস পায়নি , কারন তিনি উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি পরিচয় দিয়ে হুমকি ধামকি দিত ও এলাকার মাদক সেবিদের নিয়ে চলা ফেরা করত।

রোববার (১৪ জুন ) রাতে ঘরে ডুকে ওই প্রতারক বিধবার সাথে দৈহিক অপকর্মে লিপ্ত হয়। এ খবর পেয়ে ওই এলাকার লোকজন একত্রিত হয়ে বিধবার ঘর ঘেরাও করে নারী নেসায় আসক্ত সাংবাদিক নামধারী জহিরুল ইসলাম অরুণকে আপত্তিকর অবস্থায় আটক করে আর তার সঙ্গে পাহারায় থাকা মাদক সেবিরা পালিয়ে যায়। পরে গনধোলাইয়ের হাত থেকে বাচতে ওই বিধবা নারীকে তৃতীয় বিয়ে করার নাটোক সাজিয়ে পালিয়ে অনত্র্য সটকে পরে ।নারী লুভী আসক্ত অরুন বিভিন্ন নারীদের সাথে অবৈধ মেলা মেশা করে ছবি তুলে আবার তাদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার গুনজন উঠছে , মানুষের মুখে সোনা যায় অরুন সম্পর্কে তার ব্যাবহার এতটাই খারাপ যা কোন ভাষায় উচ্ছরন করা সম্ভব না ।

ঘটনার সত্যতা জানতে নারী নেসায় আসক্ত জহিরুল ইসলাম অরুণের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি দাবী করেন , ষড়যন্ত্রের শিকার। তবে বাবুগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনার খবর শুনেছি। তবে বাস্তবতা কি? সেটা আমি এখনো জানিনা।

উল্লেখ্য, প্রথম স্ত্রী থাকা স্বত্বেও ২০১৩ সালে উপজেলার পাঁচরাস্তা এলাকার জনৈক পুলিশ সদস্যের স্বামী পরিত্যাক্তা মেয়েকে ভাগিয়ে নিয়ে গিয়ে পালিয়ে বিয়ে করে। দীর্ঘ ৬ বছর বগুড়া জেলার গাবতলী উপজেলায় আরেকটি বিয়ে করে দ্বিতীয় স্ত্রীসহ আত্নগোপনে থেকে নিরবে বরিশালে এসে তাকে তালাক প্রদান করেন। আগের রুপে ফিরে এসে নারী নেসায় আসক্ত হয়ে আবার তৃতীয় বিয়ে করে। এতে এয়ারপোর্ট থানা প্রেসক্লাবের সাংবাদিকরা বলেন , নারী লোভী অরুন নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন অপকর্ম চালিয়ে আসলে আমরা তাকে ভাল হওয়ার জন্য বলছি সে আর ভাল হলে না ।এতে আমাদের সাংবাদিক সমাজ কলংকিত করছে । এর কঠিন থেকে ও কঠিন তম শান্তি দেওয়া হউক ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Comment moderation is enabled. Your comment may take some time to appear.