আজ : ২৫শে অক্টোবর, ২০২০ ইং , ১০ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Breaking News

মন্ত্রী:রাজধানীতে পাতাল রেল নির্মাণ করা হবে

রাজধানীতে পাতাল রেল নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে এই রেল পথ নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। এছাড়া ফরিদপুরের ভাঙ্গা থেকে বরিশাল হয়ে পায়রা সমুদ্র বন্দর পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণ করা হবে।

রেলপথ মন্ত্রী মো: মুজিবুল হক এমপি আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর কমলাপুরে মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এই তথ্য জানান।

আজ দুপুরে ঢাকা থেকে মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেন মোহনগঞ্জের উদ্দ্যেশে ঢাকা ত্যাগ করে। এই ট্রেনটি পরদিন সকালে সেখান থেকে পুনরায় ঢাকায় ফিরে আসবে।

বর্তমানে রেলওয়েতে ৪৬টি প্রকল্প চলমান রয়েছে জানিয়ে রেলপথ মন্ত্রী বলেন, এই প্রকল্পগুলোর কাজ শেষ হলে যাত্রী সাধারণ শতভাগ রেল সেবা পাবেন।

বর্তমান সরকার রেলওয়ের উন্নয়নে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে উল্লেখ করে রেলপথমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু সেতুর পাশে যমুন নদীর উপর আরেকটি রেল সেতু নির্মাণ করা হবে। বন্ধুপ্রতীম দেশ জাপান এই সেতু নির্মাণে আমাদেরকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করবে।

তিনি জানান, চট্টগ্রামের কালুর ঘাটে কোরিয়ার আর্থিক সহযোগিতায় একটি সেতু নির্মাণ করা হবে। এছাড়া দোহাজারি থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত নতুন রেলপথ নির্মাণ করা হচ্ছে।

মন্ত্রী জানান, পর্যায়ক্রমে সকল জেলায় রেল যোগাযোগ সম্প্রসারণ করা হবে। এব্যাপারে সরকার পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

মন্ত্রী আরো জানান, হাওড় এলাকায় এর আগে হাওড় এক্সপ্রেস নামে একটি আন্তঃনগর টেন চালু করা হয়েছে। আজ মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেস নামে আরো একটি নতুন ট্রেন চালুর ফলে ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের যাত্রী সাধারণ নির্বিঘ্নে যাতায়াত করতে পারবেন।

তিনি বলেন, পর্যায়ক্রমে দেশের বিভিন্ন রুটে আরও নতুন নতুন ট্রেন পরিচালনা করা হবে।

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব ফিরোজ সালাহউদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন যুব ও ক্রীড়া উপ মন্ত্রী আরিফ খান জয়, রেবেকা মোমিন এমপি ও ছবি বিশ্বাস এমপি।

এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মো: আমজাদ হোসেন, প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব সাজ্জাদুল হাসান, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাব্যাবস্থাপক মো: আবদুল হাই ও রেলওয়ে শ্রমিক লীগের সভাপতি হুমায়ুন কবীর।

মন্ত্রী বলেন, রেলওয়েকে একটি গণপরিবহন হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে বিভিন্ন বাস্তবমুখি পদক্ষেপ নেয়া নেয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, বিগত বিএনপির শাসনামলে রেল অবহেলিত ছিল। বর্তমান সরকারের সময় রেলকে গতিশীল করার লক্ষে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

উপমন্ত্রী আরিফ খান জয় জানান, নেত্রকোণা জেলায় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নির্মাণ করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই বিশ্ববিদ্যালয় নেত্রকোণাবাসীকে উপহার দিয়েছেন।

এর আগে আজ সকালে ঢাকা থেকে খুলনার মধ্যে চলাচলকারী সুন্দরবন আন্তঃনগন এক্সপ্রেস ট্রেনে পুরাতন রেলওয়ে কোচের পরিবর্তে নতুন আমদানি করা রেলওয়ে কোচ সংযোজন করা হয়।

বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মো: আমজাদ হোসেন নতুন কোচ সম্বলিত এই ট্রেনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।
এসময় রেলওয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Comment moderation is enabled. Your comment may take some time to appear.