আজ : ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং , ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Breaking News

বরিশালে গরীবদের খাদ্য সহায়তা দিতে বাড়ীর জমি ও গাছ বিক্রি করবেন আ’লীগ নেতা কালাম মোল্লা

মাসুদ রানা : ক্লিন ইমেজের রাজনীতিবিদ হিসেবে পরিচিত বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ৩০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আজাদ হোসেন কালাম মোল্লা। তার বিশেষত্ব হচ্ছে, সাধারণ মানুষকে সাহায্য নয় সহযোগিতা করা । এটা তার মন প্রানের নেশা। তিনি মরহুম পিতা মুক্তিযোদ্ধা ও বরিশালের রাজপথ কাপানো আ’লীগ নেতা জল কাদের মোল্লা’র সততা ও আদর্শকে ধারন করে রাজনীতি করছেন। বর্তমানে আস্থাভাজন অগ্রজ পিতা হিসেবে পার্বত্য শান্তি চুক্তির প্রনেতা সাংসদ আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহকে অনুসরন করে বরিশাল নগরীর উত্তর অঞ্চল কাশিপুর এলাকায় আ’লীগকে শক্তিশালী করে গড়ে তুলেছেন।

এর বাইরেও বরিশাল জেলা ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ও বরিশাল মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। বরিশালে উড়ে এসে জুড়ে বসা একটি রাক্ষুসে শকুন ডানা মেলে বার বার হামলে পড়েছিল আজাদ হোসেন কালাম মোল্লার রাজনীতির পরিমন্ডলে । সাধারন জনতার দোয়া ও ভালোবাসা ঘুরে দাড়াতে সক্ষম হয়েছেন।আজাদ হোসেন কালাম মোল্লার ভাষ্য,“ অশুভ শক্তির সাথে আপোশ করিনি বলে আমাকে হেস্থনেস্থ করতে চেয়েছিলো। কিন্তু জনগন পাশে থাকায় পেরে উঠেনি। যে জনগন আমাকে রাজনীতিতে সক্রিয় থাকতে সহযোগিতা করেছে,আমি সেই খেটে খাওয়া জনগনকে খাদ্য সহায়তা দিতে এবার বাড়ীর গাছ ও জমি বিক্রি করার জন্য মায়ের কাছ থেকে অনুমতি নিয়েছি”। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, করোনা ভাইরাসের কারনে কর্মহীন ২৫শত পরিবারের মাঝে চাল-ডালসহ বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী বিতরন করেছেন আজাদ হোসেন কালাম মোল্লা।

এছাড়াও সাধারন মানুষকে মাস্ক-হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরন করেছেন। বিশেষ করে কর্মহীন মানুষকে বে-হিসেবে নগদ টাকার সহযোগিতা করেই চলছেন। এদিকে করোনা ভাইরাসের আবহ শুরু লগ্নে সাধারন মানুষকে সচেতন করতে লিফলেট বিতরন ও মাইকিং এর মাধ্যমে প্রচার প্রচারনা চালিয়েছেন ব্যাপকভাবে। এ কাজগুলো শুধু আজাদ হোসেন কালাম মোল্লা শুধু তার নির্বাচনী ওয়ার্ডেই নয় বৃহত্তর কাশিপুর অঞ্চলে চালিয়ে যাচ্ছেন। হাতের টাকা ফুরিয়ে যাওয়ায় এবং কর্মহীন মানুষকে খাদ্য সামগ্রী বিতরন অব্যাহত রাখতে বাড়ীর জমি ও গাছ বিক্রি করার জন্য মায়ের কাছ থেকে অনুমতি নিয়েছেন বলে আজাদ হোসেন কালাম মোল্লা এ প্রতিবেদককে সরাসরি সাক্ষাৎকারে নিশ্চিত করেন। আর এর সবকিছুই তার নিজের পকেটের টাকা দিয়ে করেছেন বলে জানান তিনি। তার স্ব-ঘোষিত ভাষ্যে এও উঠে এসেছে, তিনি জিবীত থাকতে তার নির্বাচনী এলাকায় কোন অসহায় মানুষকে না খেয়ে মরতে দেবেন না। ৩০নং ওয়ার্ড এলাকা ঘুরে জানা যায়, গরীব মেয়ের বিয়ে খরচ,বিধবা নারীদের ভরন পোষন,দুস্থ,প্রতিবন্ধীসহ যে কোন সাধারণ মানুষ বিপদে পড়লে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন আজাদ হোসেন কালাম মোল্লা। স্বপন-দুলাল-রহিমা বেগমসহ বরিশাল সিটি কর্পোরেশন এলাকার ৩০নং ওয়ার্ডেও অনেকেই এসব দানের কথা প্রান খুলে বলেন সাংবাদিকদের কাছে।

তবে আজাদ হোসেন কালাম মোল্লা এক প্রশ্নের উত্তরে বলেন,“আমি কাউন্সিলর হিসেবে সিটি কর্পেরেশন থেকে কোন ফান্ড বা তহবিল পাইনি,যেটা জনগনের মাঝে বিতরন করবো। এখন পর্যন্ত যতো সহায়তা করেছি নিজের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে করেছি। তবে শুনেছি ওয়ার্ড আ’লীগ নেতাদের মাধ্যমে সিটি মেয়র ত্রান সহায়তা করেছেন। যারা ত্রান বিতরন করেছেন তারা সঠিক নিয়মে করেননি। যার দরুন যাদের ত্রান দরকার নেই তাদের ত্রান দেওয়া হয়েছে। আর যাদের দরকার তারা পায়নি”।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Comment moderation is enabled. Your comment may take some time to appear.