আজ : ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং , ৩রা আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Breaking News

বন বিভাগের কোটি টাকার গাছ লোপাট!

মোঃ বশির আহাম্মেদ ঃ বরিশালের বাকেরগঞ্জের বন বিভাগ পরিণত হয়েছে দুর্নীতির স্বর্গরাজ্যে। কোনো আইন-কানুন নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে নির্ভিগ্নে চলছে লুটপাট। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের রহস্যজনক উদাসীনতার কারণে কোনোপ্রকার ঝক্কিঝামেলা ছাড়াই ধারাবাহিক প্রক্রিয়ায় বনায়ন কর্মসূচিসহ বিভিন্ন প্রকল্পের কোটি কোটি মূল্যের গাছ লুটেপুটে খাওয়া হচ্ছে।
গত ২০১৮-২০০৯ অর্থবছরের কোটি টাকা মূল্যের গাছ বিক্রি করে লোপাট করা হয়েছে! এমন কী উপকারভোগীদের বকেয়া পরিশোধ নিয়ে করা হচ্ছে টালবাহানা। উপকারভোগীদের প্রায় অর্ধকোটি টাকা পরিশোধ না করে আত্মসাতের প্রক্রিয়া প্রায় সম্পন্ন করা হয়েছে বলে বিভিন্ন মাধ্যমে জানা গেছে। প্রায় ৩ বছর যাবত ধরে নয়ছয় করে উপকারভোগীদের বকেয়া পরিশোধ করা হচ্ছে না বলে সূত্রের অভিযোগ।
উপকারভোগীদের মধ্যে অনেকে মনে করেন রাঘববোয়াল শ্রেণির কয়েকজনের সাথে যোগসাজশ করে অর্থলোপাট পরিকল্পণা বাস্তবায়ন করেন রেঞ্জ অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন। টাকা না পাওয়া ভুক্তভোগীদের মধ্যে রয়েছেন বাকেরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌরমেয়র লোকমান হোসেন ডাকুয়া। উপকারভোগী বঞ্চিতদের তালিকায় রয়েছেন তিনিও। তিনি আরো জানান, ৩ বছর যাবত বিভিন্নভাবে চেষ্টা করেও কানো সুরাহা মেলেনি। একই অভিযোগ সকল বঞ্চিত উপকারভোগীদের।
ক্রাইম রিপোর্টার্স সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল হক আকন এ বিষয়ে জানতে চাইলে রেঞ্জ অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন প্রথমে তথ্য দিতে গড়িমসি করেন। পরে ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের বনায়ন কর্মসূচিসহ অন্যান্য প্রকল্পের গাছ বিক্রির তথ্য জানতে চাইলে তিনি দায়সারা আচরণ করেন।
বাকেগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও উপজেলা বন ও পরিবেশ বিষয়ক মনিটরিং কমিটির সভাপতি মাধবী রায় এর সাথে যোগাযাগ করা হলে তিনি অসুস্থ থাকায় এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যায়নি। সুস্থ হলে এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান তিনি। (চলবে)।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Comment moderation is enabled. Your comment may take some time to appear.