আজ : ২৫শে অক্টোবর, ২০২০ ইং , ১০ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Breaking News

কুষ্টিয়ার দাদা রাইস নাম ব্যবহার করে বরিশালের বাজারে নিন্মমানের চাল সরবরাহ

মাসুদ রানা : কুষ্টিয়ার খাজানগর এলাকার বিশিষ্ঠ চাল ব্যবসায়ী আরশাদ আলীর একক মালিকানাধীন দাদা রাইস মিলের নাম ব্যবহার করে এক শ্রেনীর অসাধু ব্যবসায়ী নিন্মমানের চাল বাজারে সরবরাহ করছে। এ ব্যাপারে কুষ্টিয়া ও বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানায় আলাদা আলাদা ভাবে সাধারন ডায়েরী করা হয়েছে। অভিযােগে উলে¬খ করা হয়- দাদা রাইস মিলের প্রপোপাইটার কুষ্টিয়া খাজানগর জগতি এলাকার মো: আরশাদ আলী। আশেপাশে এলাকাসহ তাঁর তৈরি দাদা রাইস ব্রান্ডের খাবার চাউল বস্তা জাত করে বিক্রয় করে থাকেন। যা দেশের বিভিন্নস্থানে সুনাম অর্জন করে। একই সময়ে তার এলাকার সালাম অটো রাইস মিলের মালিক তার আপন বড় ভাই আব্দুস সালাম প্রধান এবং তার ছেলে আনোয়ার হোসেন তাদের নিজ নামে সালাম রাইস বস্তাজাত করে বাজারজাত করে আসছিল। কিন্তু সা¤প্রতিক সময়ে আরশাদের একক মালিকানাধীন দাদা রাইস এর সুনাম ও মর্যাদায় ইশ্বানিত হয়ে আব্দুস সালাম ও আনোয়ার নানা সময়ে দাদা রাইস নাম ব্যবহার করে নিন্মমানের চাউল বাজারে ছেড়ে অনৈতিকভাবে লাভবান হওয়ার চেষ্টা করছে। তার অসৎ উদ্দেশ্য দাদা রাইস নাম দিয়ে ট্রেড মার্ক করার জন্য আবেদন করেন। এমন খবর জানতে পেরে ট্রেড মার্ক অফিসে দাদা রাইসের পক্ষে আরশাদ আলী ট্রেড লাইসেন্স, ফ্যাক্টরী লাইসেন্স,টিন ও ভ্যাট সার্টিফিকেটসহ অন্যান্য সকল কাগজপত্র উপস্থাপন করে আপত্তি প্রদান করে। এতে বিজ্ঞ ট্রেড মার্ক ও ট্রাইব্যুনাল ২০১৯ সালের ৪ নভেম্বর ১২৫৩৯২ নং ট্রেড মার্ক আবেদনটি বাতিল করে দাদা রাইসের একক মালিক হিসেবে আরশাদ আলীর নাম লিপিবদ্ধ করার আদেশ দেন। যার স্মারক নং ৯৪২৫/১৯,তারিখ ৪/১১/২০১৯। এবং দাদা রাইস নামে আরো একটি আবেদন বিজি প্রেস থেকে ট্রেড মার্ক জার্নালে প্রকাশিত হয়। যার আবেদন নং ২০৬৮২৮। উক্ত আবেদনটি একক নামে প্রকাশিত হয়। দাদা রাইস ব্রান্ডের ওপর আরশাদ আলীর একক মালিকানার বিষয়টি পূনরায় নিশ্চিত করা হয়। দাদা রাইস ব্রান্ডের সুনাম ক্ষুন্ন করতে এক শ্রেনীর কুচক্রিমহলের বিষয়ে প্রশাসনের আশু দৃষ্টি কামনা করেছেন দাদা রাইস ব্র্যান্ড।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Comment moderation is enabled. Your comment may take some time to appear.